দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনআওয়ামীলীগের মনোনয়ন যুদ্ধে মুকুল শান্ত, বিএনপিতে একক প্রার্থী হাফিজ ইব্রাহিম

প্রথম পাতা » দৌলতখান » দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনআওয়ামীলীগের মনোনয়ন যুদ্ধে মুকুল শান্ত, বিএনপিতে একক প্রার্থী হাফিজ ইব্রাহিম
বুধবার, ২৯ মার্চ ২০২৩



খলিল উদ্দিন ফরিদ।।ভোলাবাণী।।

জাতীয় সংসদের ১১৬ ভোলা-২ আসন আসনটি বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান উপজেলা নিয়ে গঠিত । স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে এই আসনে আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন সংবিধানপ্রণেতা, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও ভাষাসৈনিক রেজা-এ-করিম চৌধুরী (চুন্নু মিয়া)। ১৯৭৩ সালে এই আসনেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তিতে, বঙ্গবন্ধুর ছেড়ে দেওয়া আসনে উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন।

আওয়ামীলীগের মনোনয়ন যুদ্ধে মুকুল শান্ত,  বিএনপিতে একক প্রার্থী হাফিজ ইব্রাহিম

বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান নিয়ে আসনটি পুনর্বিন্যস্ত হওয়ার পর ১৯৮৬ সালে সংসদ সদস্য হন আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতা তোফায়েল আহমেদ।১৯৮৮ সালে বাঘা সিদ্দিক নামে খ্যাত বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান নির্বাচিত হন। ১৯৯১ সালে পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় সংসদ সদস্য হন তোফায়েল আহমেদ। তোফায়েল আহমেদ ভোলা ১ ও ভোলা ২ আসনে নির্বাচিত হওয়ার পর ভোলা ২ আসনটি ছেড়ে দিলে উপনির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মোশারেফ হোসেন শাজাহান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ নির্বাচিত হন।১২ জুন ১৯৯৬ সালে তোফায়েল আহমেদ নির্বািচিত হন। ১লা অক্টোবর ২০০১ সালে অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী তোফায়েল আহমদকে হারিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাফিজ ইব্রাহিম নির্বাচিত হন। ২৯ নভেম্বর ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তোফায়েল আহমেদ পুনরায় আসনটি ফিরে পান। দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তোফায়েল আহমেদ তিনি নিজের ভাতিজা আলী আজম মুকুলকে আসনটি ছেড়ে দেন।
২ টি পৌর সভা ও ১৮ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ভোলা ২ আসনের মেটি ভোটার সংখ্যা ২৯৭০২৩ জন ।এর মধ্যে পুরুষ ১৫২০৯৬ জন এবং নারী ভোটার ১৪৪৯২৭ জন। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে এ আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও বাংলাদেশ জাতীয় পার্টিসহ (বিজেপি) সহ বিভিন্ন দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। মনোনয়নের জন্য শুরু করেছেন দৌড়ঝাঁপ। তাঁরা দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে তদবির শুরু করেছেন। পাশাপাশি তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গেও নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। ভোটারদের সঙ্গেও মতবিনিময় করছেন।

সম্প্রতি বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান উপজেলায় গেলে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জানান, এলাকায় দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের আলী আজম মুকুলের যোগাযোগ রয়েছে বেশি। গণসংযোগ ও সাংগঠনিক যোগাযোগের দিক থেকে এগিয়ে আছেন তিনি। এ বিষয়ে বোরহানউদ্দিন পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃরফিকুল ইসলাম বলেন, আওয়মীলীগ থেকে আলী আজম মুকুল দুই মেয়াদে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি নির্বাচনি এলাকায় অনেক উন্নয়ন করেছেন। তৃর্নমূলের সকল নেতাকর্মী তার সাথেই আছে, তাই আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী।’

তবে মনোনয়ন দৌড়ে পিছিয়ে নেই ঢাকা সিটিকর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ,ভোলা ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক স্থাণীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী নাজিউর রহমান মনজুর ছেলে ,ভোলা ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আন্দালিব রহমান পার্থের ছোট ভাই তরুণ রাজনীতিবিদ কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ড. আশিকুর রহমান শান্ত। তিনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান উপজেলায় জনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। শান্ত সম্প্রতি ভোলায় এসে প্রায় এক সপ্তাহ অবস্থান করে নিজ নির্বাচনী এলাকার আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে সভা ও মতবিনিময় করেছেন। আগামী নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাঁর পক্ষে কাজ করার জন্যও দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ হাওলাদার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।তিনি বলেন দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করতে তৃর্নমূলে কাজ করে যাচ্ছি। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমি আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রতাশি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ভোলা জেলা শাখার সাবেক সদস্য মো. ওমর শরীফ জানান,বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতিয়ার হিসাবে কাজ করতে চাই। তাই আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চাইবেন।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের ছেলে ডা. আফতাব ইউছুফ রাজ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চাইবেন বলে এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে।

এদিকে বিএনপি দলীয় নেতৃবৃন্দ বলেন, হাফিজ ইব্রাহীম ও তাঁর স্ত্রী মাফরুজা সুলতানার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। দুদকের এক মামলায় তাঁর ১০ বছর ও স্ত্রীর ৩ বছরের কারাদণ্ড হওয়াসহ নানা কারণে খানিকটা কোণঠাসা অবস্থায় থাকলেও রাজনীতির মাঠে তিনি সক্রিয়। বোরহানউদ্দিন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃসরোয়ার আলম খান বলেন, একক প্রার্থী হিসেবে মাঠে আছেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য হাফিজ ইব্রাহীম। মামলা-সংক্রান্ত কারণে তিনি যদি নির্বাচনে অংশ নিতে না পারেন, তবে তাঁর ছেলে ব্যারিস্টার মারুফ ইব্রাহীম আকাশ প্রার্থী হতে পারেন।তিনি জানান জনাব হাফিজ ইব্রাহিমের নির্বাচন করতে আইনি কোনো বাধা নেই,হাইকোট থেকে মামলার রায় স্থগিত আছে।

এ ছাড়া জাতীয় পার্টি (এরশাদ) ভোলা জেলা শাখার আহ্বায়ক মো. মিজানুর রহমান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী ওবায়েদ বিন মোস্তফাও নিজ নিজ দল থেকে নির্বাচন করবেন বলে জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৫:২৯:৪৮   ২৫০ বার পঠিত  |




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

দৌলতখান’র আরও খবর


দৌলতখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হ্যাট্রিক জয়ী মঞ্জুর আলম খান
দৌলতখানে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে সেমাই উৎপাদন করায় কারখানার জরিমানা
শিক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত করার অভিযোগদৌলতখানে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১ ॥ আহত-৬
ভোলায় বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করছেন যুব শক্তি ফাউন্ডেশন
দৌলতখানে বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ উদ্বোধন করলেন এমপি মুকুল
বাংলাবাজারে নসিমন উল্টে নিহত ১, আহত ৫ শ্রমিক
সাঈদীর মৃত্যুর পোস্ট ফেসবুকেদৌলৎখানে ছাত্রলীগের ৪ নেতা বহিষ্কার
৬ বছরের শিশু যখন মামলার প্রধান আসামী!
ভোলায় সবুজ বাংলা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে মাদ্রাসা ছাত্র ও বয়স্কদের মাঝে বিনামূল্যে কুরআন বিতরণ
আবি আব্দুল্লাহ কলেজ জাতীয়করণ হওয়ায় এমপি মুকুলকে সংবর্ধনা

আর্কাইভ