৬ বছরের শিশু যখন মামলার প্রধান আসামী!

প্রথম পাতা » দৌলতখান » ৬ বছরের শিশু যখন মামলার প্রধান আসামী!
সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩



---স্টাফ রিপোর্টারঃ ভোলার দৌলতখানে জমি জমার বিরোধের জের ধরে ঘটনায়   হামলার নেতৃত্ব দেয়ার অভিযোগে মো. শাকিল নামের সাড়ে ৬বছর বয়সী শিশুকে প্রধান আসামী করে মামলা করা হয়েছে।

এ মামলায় শিশু শাকিল উচ্চ আদালতের জামিনে আছেন। এ ঘটনায় পুরো জেলা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। প্রতি পক্ষকে ঘায়েল করতে

বড় ভাইয়ের নামের স্থানে ছোট ভাইয়ের নাম  দেয়া হলেও তার বয়স বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। আর এ কারনে ছোট ভাইকে বিনাকারনে বাবার কোলে করে আদালতে এবং উকিলের চেম্বার ঘুরতে হচ্ছে।
প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশু মো. শাকিল বর্তমানে বিদ্যালয়ে যাওয়া পরিবর্তে বাবার কোলে চড়ে ঘুরছে আদালত প্রাঙ্গন আর উকিলের চেম্বার। এমনকি তাকে হাজিরাও দিতে হচ্ছে আদালতে। তবে মামলার অভিযোগ মিথ্যা দাবি করেছেন শিশুর পরিবার ও আইনজীবী।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল দৌলতখান উপজেলার দিদারউল্লা গ্রামের আঃ মন্নান বাদী হয়ে একই এলাকার মো. শাকিলকে প্রধান আসামী করে ৬ জনের বিরুদ্ধে দৌলতখান সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি অভিযোগ দাখিল করেন। মামলার অন্য অভিযুক্তরা হচ্ছেন শাকিলের বাবা মোখলেছুর রহমান, চাচা মাহে আলম, দাদা আবদুল খালেক, মা রুনু আকতার ও চাচী নাসিমা বেগম।
অভিযোগে শাকিলের বয়স উল্লেখ করা হয় ২০ বছর। কিন্তু জন্ম নিবন্ধন সনদ অনুযায়ী শাকিলের বয়স মাত্র  ৬ বছর ৭ মাস (জন্ম তারিখ ২৩/১১/১৬)। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয় শাকিলের নেতৃত্বে বাদী ও স্বাক্ষীদের হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা, পিটিয়ে ও কূপিয়ে আহত এবং নারীর শ্লীলতাহানী করা হয়েছে। ১২ এপ্রিল আদালত ১ থেকে ৪ নম্বর আসামীদের বিরুদ্ধে এফআইআর নেওয়ার জন্য দৌলতখান থানাকে নির্দেশ দেন। আদালতের নিদের্শে গত ১৫ এপ্রিল দৌলতখান থানায় মামলা রুজু হলে ১৮ এপ্রিল হাইকোর্ট থেকে চার সপ্তাহের জামিন আনেন শাকিল সহ অন্য আসামীরা। নিন্ম আদালতে ওই জামিন বলবৎ থাকলেও এ পর্যন্ত চার বার হাজিরা দিতে হয়েছে তাদেরকে।
গত মঙ্গলবার (১১ জুলাই) বাবা মোখলেছুর রহমানের কোলে চড়ে ভোলার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আসেন সাড়ে ৬ বছরের শিশু মো. শাকিল। সাথে আসেন মা রুনু আকতারও। প্রতিপক্ষের করা মামলার হয়রানী থেকে মুক্ত হতে আইনজীবীর সাথে পরামর্শ করতে বাবার সাথে আদালতে আসতে হয়েছে শিশু শাকিলকে।

শিশু শাকিলের বাবা মোখলেছুর রহমান জানান, বাদী আবদুল মন্নানের সাথে তাদের প্রায় দুই একর জমি নিয়ে বিরোধ চলছে। তার জমি আত্মসাৎ করার জন্য প্রতিপক্ষ মামলাসহ নানাভাবে হয়রানি করছে। জাল জালিয়াতির মাধ্যমে জমির ভুয়া কাজপত্র সৃষ্টি করেছে। সর্বশেষ তার শিশু ছেলেকে প্রধান আসামী করে সাজানো মামলায় তার পরিবারকে ফাঁসানোর চেস্টা করছে। মামলায় যেই তারিখ ও সময় উল্লেখ করা হয়েছে তখন তিনি ঘটনাস্থলে ছিলেন না। ঢাকায় চাকুরীকরা তার ভাই ও ৮৫ বছর বয়সী বাবাকেও আসামী করা করা হয়েছে শুধু হয়রানী করার জন্য।

শাকিলের মা রুনু আকতার জানান, ছেলে আদালতে আসলে তাকেও সাথে আসতে হয়। অপরিচিত স্থান ও অনেক মানুষজন দেখে ভয় পায় শিশু শাকিল। এ কারণে তিনিও সাথে আসেন। এমন ভোগান্তি থেকে তিনি মুক্তি চান।

শাকিলের আইনজীবী এ্যাডভোকেট আদিল মাহামুদ রোম্মান জানান, এ বয়সের একটি শিশুর পক্ষে হামলায় নেতৃত্বে দেয়া বা কাউকে পিটিয়ে আহত করা সম্ভব না। মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে অবৈধভাবে শিশুর বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়েছে।
অভিযুক্ত এ শিশু হামলা বা মারামারি করেনি বলে স্বীকার করে মামলার বাদী আবদুল মন্নান জানান, ভুল বসত এজাহারে এ শিশুর নাম এসেছে। শাকিলের বড় ভাইর নামের পরিবর্তে তার ছোট ভাইর নাম লেখা হয়েছে।
মামলার ৬নম্বর স্বাক্ষী ও বাদীর ভাই মো. রুহুল আমিন জানান, তাদের বিরুদ্ধে শাকিলের বাবা একটি মামলা করেছিলেন এটা তার কাউন্টার মামলা।
দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সত্য রঞ্জন খাশকেল কালের রোববার (১৬ জুলাই) সকালে  জানান, আমরা মামলার তদন্ত গিয়ে দেখেছি আসামীর বয়স ৬ বছর।  আমরা সত্যতা পেয়েছি খুব শিগগির আদালতে তদন্ত রিপোর্ট প্রেরন করবো। তিনি বলেন, মামলাটি আদাল থেকে এসেছে, সেখানে শাকিলের বয়স ২০ দেখানো হয়েছে। কোর্টের আদেশে মামলাটি রুজু করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে এসআই মো. মনির তদন্ত করছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা সরেজমিনে গিয়েও শাকিলকে শিশু হিসেবে দেখেছেন
এসময় বাদী পক্ষের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, মূলত শকিলের ২০ বছর বয়সী বড় ভাই আছে। তার নামের স্থলে শাকিলের নাম ভুলে চলে এসেছে।
ভোলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল রিপন চন্দ্র সরকার বলেন, আদালতের আদেশে থানায় মামলাটি হয়েছে। মামলার তদন্তকাজ অনেকটাই শেষ। সরেজমিনে যাচাই বাছাই করে পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল করবে। শিশুটি যেন আইনি সুযোগ সুবিধা পান সেই লক্ষ্যেই পুলিশ কাজ করছে।

উল্লেখ্য, মামলার বাদী ও শিশু শাকিলের পরিবার পরস্পর আত্মীয়। এদের মধ্যে জমিজমা নিয়ে বিভিন্ন আদালতে চারটি মামলা রয়েছে। শাকিল চার ভাই বোনের মধ্যে সবার ছোট।

বাংলাদেশ সময়: ২০:১৪:৩৪   ১২২ বার পঠিত  |




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

দৌলতখান’র আরও খবর


দৌলতখানে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে সেমাই উৎপাদন করায় কারখানার জরিমানা
শিক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত করার অভিযোগদৌলতখানে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১ ॥ আহত-৬
ভোলায় বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করছেন যুব শক্তি ফাউন্ডেশন
দৌলতখানে বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ উদ্বোধন করলেন এমপি মুকুল
বাংলাবাজারে নসিমন উল্টে নিহত ১, আহত ৫ শ্রমিক
সাঈদীর মৃত্যুর পোস্ট ফেসবুকেদৌলৎখানে ছাত্রলীগের ৪ নেতা বহিষ্কার
৬ বছরের শিশু যখন মামলার প্রধান আসামী!
ভোলায় সবুজ বাংলা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে মাদ্রাসা ছাত্র ও বয়স্কদের মাঝে বিনামূল্যে কুরআন বিতরণ
আবি আব্দুল্লাহ কলেজ জাতীয়করণ হওয়ায় এমপি মুকুলকে সংবর্ধনা
ভোলায় যাত্রীবাহী বাস ঘাদে,আহত ১০

আর্কাইভ