ভোলার চরাঞ্চল গুলোতে পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত

প্রথম পাতা » ভোলার পর্যটন » ভোলার চরাঞ্চল গুলোতে পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৬



---ভোলা বাণী ডেক্স: কুইন আইল্যান্ড অব বেঙ্গল নামে পরিচিত দ্বীপ জেলা ভোলা। ভোলার চরাঞ্চল গুলোতে পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত শীতের শুরুতেই মনপুরা ও চর কুকরী-মুকরী, ঢালচরসহ বিভিন্ন চরাঞ্চলে পিকনিক পার্টি আর পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। যেখানে রয়েছে বিশাল বনায়নের অভায়ারণ্য, হাজারো হরিণের পদচারণা আর লাখো পাখির কলতান। তবে বিশুদ্ধ পানি আর নিরাপত্তাসহ কিছু সমস্যার কথা পর্যটকরা বললেও তা সমাধানের কথা বলেছেন জেলা প্রশাসক ও বন বিভাগের কর্মকর্তারা।
কুইন আইল্যান্ড অব ভোলা বা সৌন্দর্যের রানী নামে পরিচিত দেশের একমাত্র দ্বীপ জেলা ভোলা। ভোলার মনপুরা, চর কুকরী-মুকরী, ঢালচর, তারুয়ার চর, চর পাতিলা, নারিকেল বাগানসহ বিশাল প্রায় ৫১ হাজার হেক্টর বনের অভায়ারণ্য।--- এখানের হাজারো হরিণ, বিভিন্ন প্রজাতির লাখো পাখির কলতান আর ইলিশ ও কাকড়া ধরার দৃশ্য সরাসরি দেখার অপার সুযোগ। তাই এই সুযোগকে হাত ছাড়া করতে চায় না দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটক আর পিকনিকে আসা লোকজন। তাইতো ছোট ছোট ট্রলারে করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন প্রকৃতি প্রেমিরা। ঘুরে বেড়ানোর সময় হরিণের পাল, বন শিয়াল, মেছোবাঘ, বন্য মোরগ, বানরসহ লাখো হরিণ চোখের সামনেই পড়বে। এ ছাড়া আপনি সকালে তারুয়ার চর, নারিকেল বাগানে দাঁড়ালে সূর্য উদয় আর বিকালে একই স্থানে অস্ত দেখার সুযোগ পাবেন। শুধু তাই নয় বিশাল সী-বীচ দেখার সুযোগ রয়েছে এখানে। বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটক অলক সিকদার.উজ্জল,নাজিম,মারুফ নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে এসব এলাকাকে পর্যটন কেন্দ্র ঘোষণার মাধ্যমে সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর দাবি জানান । তারা আরো বলেন, সুন্দরবনের চেয়েও সুন্দর মনপুরা ও চর কুকরী-মুকরী, ঢালচরসহ বিভিন্ন চরাঞ্চল গুলো। অপরদিকে ট্রলারে করে ঘুরে বেড়ানোর সময় চোখে পড়বে দুই পাশে বিশাল বনায়ন।--- মাঝে মাঝে গোলপাতার আর ক্যাওড়ার বন। শুধু তাই তাই নয় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা জেলেদের কাকড়া ধরার দৃশ্য। লাখো পাখির কলতানে মুগ্ধ হয় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটক আর পিকনিক পার্টির সদস্যরা। পিকনিকে আসা পটুয়াখালীর আমিনুল, রহমান জানালেন বিশুদ্ধ পানিসহ নিরাপত্তার সমস্যার কথা। তারা এসব চরাঞ্চলে ডিপটিউবয়েল না থাকায় বিশুদ্ধ পানির সমস্যা আর বিশাল বনের নিরাপত্তার কথা তুলে ধরে দ্রুত এসব সমস্যা দূর করে পর্যটন কেন্দ্র ঘোষণা করার কথা বলেন। একই সঙ্গে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে রাজস্ব আয় করার কথাও বলেন তারা।
ভোলাকে কুইন আইল্যান্ড অব ভোলা বা সুন্দর্যের রানী হিসেবে আখ্যায়িত করে ভোলার জেলা প্রশাসক( যুগ্ন সচিব) মোঃ সেলিম রেজা বলেন, কেবল কার, হোটেল- মোটেলের ব্যবস্থা করে প্রকৃতির অপার সম্ভাবনার কেন্দ্র ভোলাকে বিশ্বমানের একটি ইকোটুরিজম হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব। এজন্য যতটুকু নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা প্রয়োজন ততটুকু শক্তি রয়েছে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলার জন্য। একই সাথে যেসব স্থানে পর্যটনের সম্ভাবনার কথা রয়েছে সেখানে বিশুদ্ধ পানির জন্য ডিপটিউবয়েল স্থাপনের কথা জানান তিনি।
---অপরদিকে ৫১ হাজার হেক্টর বনায়নের কথা উল্লেখ করে ভোলার ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ফরিদ মিয়া বলেন, এই বনায়নে হরিণ, মেছবাঘ, গুইশাপসহ বিভিন্ন ধরনের বন্যপ্রাণী রয়েছে। এছাড়া লাখ লাখ অতিথি পাখি আসে শীত মৌসুমে। ---পর্যটকদের জন্য একটি কোস্টাল ফরেস্ট ডেবলপমেন্ট কাম রেস্ট হাউজ নির্মাণের কাজ চলছে। টাওয়ার নির্মাণের কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যেটি হলে পর্যটকরা আরো সুন্দরভাবে প্রকৃতিকে উপভোগ করতে পারবেন, আর দেশের রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন শত শত পর্যটক আসছে জানিয়ে বলেন, তাদের নিরাপত্তার বন কর্মী, কোস্টগার্ড, পুলিশের সমন্বয় টিম গঠন করা হয়েছে শীত মৌসুমকে কেন্দ্র করে। এরা নিয়মিত টহল দিচ্ছে পর্যটনের সম্ভাবনাময় চলাঞ্চলগুলোতে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯:৫২:১৪   ৮১৫ বার পঠিত  |




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

ভোলার পর্যটন’র আরও খবর


চর কুকরি মুকরি দ্বীপঈদের পর বেড়াতে যাবেন যেখানে
ভোলায় বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
নতুন সাজে সেজেছে ইলিশার মেঘনা রিসোর্ট
বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে প্রকৃতির এক বিশ্বয় ঈদে ‘ঘুরে আসুন সুন্দরবন খ্যাত “চর কুকরি মুকরি দ্বীপ”
সেন্ট মার্টিন দ্বীপ কিভাবে বাংলাদেশের অংশ হলো
প্রকৃতির এক বিশ্বয় কুকরী-মুকরীবঙ্গোপসাগরের কোলঘেঁষে বাঁকে বাঁকে সুন্দরবন।
বঙ্গোপসাগরের মোহনায় অপরুপ সাজে তারুয়া সমুদ্র সৈকত মন কেড়েছে পর্যটকদের
তজুমদ্দিনে টেকশই বেড়িবাঁধ নির্মাণ,অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি।
ঈদে ‘ঘুরে আসুন বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে প্রকৃতির এক বিশ্বয় “চর কুকরি মুকরি দ্বীপ”
মেঘনার অব্যাহত ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রুপালী দ্বীপ মনপুরা

আর্কাইভ