চরফ্যাশনে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বার ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা

প্রথম পাতা » চরফ্যাশন » চরফ্যাশনে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বার ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা
রবিবার, ২১ মে ২০২৩



---চরফ্যাশন অফিস ॥

চরফ্যাশনের আসলামপুরে প্রতিবেশী ২সন্তানের জনকের ধর্ষণে অন্তÍঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে এক তরুনী। তরুনীর অভিযোগ ইতিপুর্বেও সে একবার অন্তঃসত্ত্বা হলে অভিযুক্ত কবির মাঝি তার গর্ভের ভ্রন নষ্টের ব্যবস্থা করে। এখন তিনি ফের দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা। গতকাল শনিবার ধর্ষিতা তরুনী স্থানীয় ইউপি সদস্য এবং সংবাদকর্মীদের কাছে ঘটনার বর্ননা দিয়েছেন। ৭ মিনিটের ভিডিও বক্তব্যে ধর্ষিতা তার সাথে কবির মাঝির অনৈতিক সম্পর্ক এবং সর্বশেষ অন্তঃসত্তা হলে কেটে পড়ার বর্ননা দিয়ে বিচার পাওয়ার ব্যাপারে স্থানীয় ৮নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্যের সহায়তা চেয়েছেন। ধর্ষিতা তরুনীর ভিডিও বক্তব্যটি এ প্রতিনিধির কাছে সংরক্ষিত আছে। জানাগেছে কবির মাঝি আছলামপুর ৮নং ওয়ার্ডের সামছল মাঝির ছেলে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানান, অভিযুক্ত কবিরের দুই ভাই প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনাটি এলাকায় ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে। শনিবার দুপুরে ভিক্টিম এবং অভিযুক্তের পরিবারের উপস্থিতিতে ইউপি সদস্য নাছির উদ্দিনের বাড়িতে বসে ঘটনাটি সমঝোতার চেষ্টা করা হয়। এসময় স্থানীয় সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে  ইউপি সদস্য পক্ষদেরকে চলে যেতে বলেন।  ইউপি সদস্য নাছির উদ্দিন সংবাদকর্মীদের জানান, উভয় পক্ষ সমঝোতার জন্য তার কাছে এসেছিলো। বিষয়টি নারী গঠিত হওয়ায় তিনি সমঝোতা করা সম্ভব নয় বলে তাদেরকে জানিয়ে দিয়েছেন।

ভিডিও বক্তব্যে ধর্ষিতা দাবী করেন, প্রতিবেশী কবির মাঝির স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা হলে তাকে তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন। এর পর থেকে একা ঘরে মাঝে মধ্যে তাকে ধর্ষণ করতো। ধর্ষনে তরুনী অন্তঃসত্ত্বা হলে কবির মাঝি তাকে ঔষধ খাইয়ে গর্ভের ভ্রন নষ্টের ব্যবস্থা করেন। এতে রক্ত ক্ষরণ শুরু হলে স্থানীয় পল্লি চিকিৎসক কদম আলীর কাছে পাঠায়  তরুনীকে। কদম আলী  ঔষদ দিলে কবির মাঝি ওই ঔষধের টাকা পরিশোধ করেন। পরবর্তীতে কবির মাঝির স্ত্রী বাড়ি ফিরলে তার পর থেকে গোয়াল ঘরের পাশে  তার সাথে দৈহিক মেলা মেশা করতো। এক পর্যায়ে ফের সে অন্তঃসত্ত্বা হলে বিষয়টি কবিরকে জানায় তরুনী। এর পর থেকে কবির গা ডাকা দেয়। তরুনীর সঙ্গে কবিরের অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টি কবিরের স্ত্রী জানে  দাবী করে তরুনী বলেন বর্তমানে আমি আবার দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা।ভিডি বক্তব্যে তরুনী বলেন, কবির মাঝি আমাকে পেটের ব্যাথার বলে পানি পড়া খাওয়ানোর পর তার জন্য আরো বেশী পাগল হয়ে যাই। অভিযুক্ত কবির মাঝিকে না পাওয়ায় অভিযোগের বিষয়ে তার বক্তব্য জানা যায়নি। তবে তার বড় ভাই মনির তাদের ইজ্বতের বিষয় উল্লেখ করে এ নিয়ে নিউজ না করার অনুরোধ জানান।

আসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিলিটারী বলেন, ঘটনাটি সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য নাছির উদ্দিন আমাকে জানিয়েছে। যেহেতু বিষয়টি আমরা সমঝোতা করার আওতায় পরেনা তাই ধর্ষিতার পরিবারকে আইনের আশ্রয় নেয়ার জন্য বলতে বলেছি।

চরফ্যাশন থানার ওসি মোরাদ হোসেন বলেন, অভিযোগ পেলে এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪:০৬:২৩   ১০৫ বার পঠিত  |




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

চরফ্যাশন’র আরও খবর


চরফ্যাসনে দূর্গতদের ঘরে ঘরে শুকনো খাবার নিয়ে হাজির ইউএনও
চরফ্যাশনে মোটরসাইকেল কেড়ে নিল ২ যুবকের প্রাণ
বীজ পাইনি সার দিয়ে কি করবো ? চরফ্যাশনে কৃষকের প্রশ্ন
চরফ্যাশনে সড়ক দুর্ঘটনায় এক পুলিশ সদস্য নিহত
চরফ্যাশনে পলিথিন ও প্লাস্টিক পুড়িয়ে তৈরি হচ্ছে জ্বালানি তেল
চরফ্যাসনে হিটস্ট্রোকে যুবকের মৃত্যু
চরফ্যাশনে স্বামীর প্রহার থেকে স্ত্রীকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত-৩
চরফ্যাশনে ঈদের আগে পাকা ঘর পেলেন ভূমিহীন ৩৭০ পরিবার
চরফ্যাশনে ২০ হাজার প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ
নানা বাড়িতে এসে পানিতে ডুবে দুই খালাতো ভাইয়ের মৃত্যু

আর্কাইভ