শিরোনাম:
ভোলা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ন ১৪২৯

Bholabani
মঙ্গলবার ● ৩১ মে ২০২২
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » লালমোহনে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষককে অব্যহতি
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » লালমোহনে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষককে অব্যহতি
১৭৫ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ৩১ মে ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

লালমোহনে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষককে অব্যহতি

সালাম সেন্টু।। ভোলাবাণী।। লালমোহন প্রতিনিধি :

ভোলার লালমোহন উপজেলার রমাগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব চরউমেদ ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কাজের বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহাবুদ্দিন কে অব্যহতি প্রদান করেছে উপজেলা শিক্ষা অফিস।


লালমোহনে বিদ্যালয়ের অর্থ   আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষককে অব্যহতিগত ২৬ মে (বৃহস্পতিবার) উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ের উশিঅ/লাল ৪২৮ নং স্মারকে তাকে অব্যহতি প্রদান করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে স্মারকলিপি প্রেরণ করেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আক্তারুজ্জামান মিলন।


এতে বলা হয়, স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসান রিমনের মুঠোফোনিক বার্তা এবং বিনা অনুমতিতে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ও বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কাজের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাতকরণে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আকতার হোসেন নান্নুর দেয়া লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহাবুদ্দিন কে অব্যহতি প্রদান করা হয়। একইসাথে ওই বিদ্যালয়ের পরবর্তী সিনিয়র শিক্ষকের নিকট ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের হস্তান্তর ও বিদ্যালয়ের সকল তথ্য বুঝিয়ে দিতে মোঃ শাহাবুদ্দিন কে নির্দেশ প্রদান করা হয়।


এ বিষয়ে জানতে অব্যহতিপ্রাপ্ত শিক্ষক মোঃ শাহাবুদ্দিনের মুঠোফোনে কল করলে ব্যস্ততার অজুহাতে কতা বলেননি তিনি।


এদিকে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আকতার হোসেন নান্নু বলেন, গত রমজান মাসে বিদ্যালয়ের মেইনটেনেন্স কাজের বিল তুলতে আমার স্বাক্ষর নিয়েছিলেন শিক্ষক মোঃ শাহাবুদ্দিন। তবে ওই বিল না তুলে গত ২৫ মে বিদ্যালয়ের স্লিপের বিলের সাথে একত্রে তুলে তা আত্মসাত করেছেন। তাই শিক্ষা অফিসে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।


প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহাবুদ্দিনকে অব্যহতি প্রদানের তথ্য নিশ্চিত করে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আক্তারুজ্জামান মিলন বলেন, তার বিরুদ্ধে অসংখ্য রয়েছে। বিদ্যালয়ের সভাপতির দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে প্রাথমিকভাবে তাকে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযোগ প্রমাণিত হলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে জেঁকে বসবে শীত
মুজিব কোর্টের ইতিকথা
ভোলায় নতুন গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান পেয়েছে বাপেক্স
লালমোহনে স্লো রেস মোটরসাইকেল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
বিয়ের পরে ওজন বাড়ে,জেনে নিন এর কারণ
ভোলায় হারিয়ে যাওয়া ১০টি ফোন উদ্ধার করলো সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন
চরফ্যাশনে দেশী হাঁসের কালো ডিম নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যে
যে কোন সংকটে মানবসেবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন শাহপরান জয়
যৌনতায় সুখ পেলই বিয়ে হয় যেখানে
তজুমদ্দিনে টেকশই বেড়িবাঁধ নির্মাণ,অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি।