প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজবাহী রণতরী চালু করল তুরস্ক।

প্রথম পাতা » ইউরোপ » প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজবাহী রণতরী চালু করল তুরস্ক।
মঙ্গলবার, ১১ এপ্রিল ২০২৩



ভোলাবাণী আন্তর্জাতিক ডেক্স।। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও আঞ্চলিক উত্তেজনার মধ্যেই প্রথমবারের মতো উড়োজাহাজবাহী রণতরী চালু করল তুরস্ক। নৌ অভিযানে ড্রোনের সক্ষমতা বাড়াতেই তুরস্কের এই উদ্যোগ বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

উড়োজাহাজবাহী রণতরী ‘টিসিজি আনাদোলু’। ছবি: তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট

উভচর রণতরীটির নাম ‘টিসিজি আনাদোলু’। এটি ছোট রানওয়ে থেকে উড্ডয়নে সক্ষম হেলিকপ্টার ও যুদ্ধবিমান বহন করতে পারবে। রণতরীটির দৈর্ঘ্য ২৩২ মিটার এবং প্রস্থ ৩২ মিটার। এটি বিভিন্ন ধরনের যুদ্ধযানসহ ১ হাজার ৪০০ সৈন্য বহন করতে পারবে।গতকাল সোমবার ইস্তাম্বুলে রণতরীটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেন, সারা বিশ্বে সামরিক ও মানবিক কার্যক্রম পরিচালনায় রণতরীটি ব্যবহার করা হবে। আমরা এই রণতরীকে আঞ্চলিক নেতৃত্ব সুসংহত করার প্রতীক হিসেবে দেখছি।

রয়টার্স জানিয়েছে, স্প্যানিশ বিমানবাহী রণতরী জুয়ান কার্লোস আইয়ের নকশার ওপর ভিত্তি করে সেদেফ শিপইয়ার্ড এটি তৈরি করেছে। এফ-৩৫ মডেলের যুদ্ধবিমান বহনে সক্ষম এমন একটি রণতরী তৈরির প্রাথমিক পরিকল্পনা ছিল তুরস্কের। কিন্তু ২০১৯ সালে রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কেনার পর যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো তাদের এফ-৩৫ প্রোগ্রামটি তুরস্ক থেকে সরিয়ে নিলে আংকারা তাদের রণতরী তৈরির পরিকল্পনা পরিবর্তন করে।

পরে টিসিজি আনাদোলুকে ড্রোনবাহী রণতরীতে রূপান্তর করা হয়। এটি হেলিকপ্টার, ড্রোন, হালকা স্থলযান, হালকা যুদ্ধযান ও সেনা বহনে সক্ষম।

বাংলাদেশ সময়: ১৫:২৭:১৮   ৭০ বার পঠিত  |




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)