শিরোনাম:
ভোলা, শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮

Bholabani
মঙ্গলবার ● ৪ জানুয়ারী ২০২২
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » ভোলায় সাংবাদিক নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নয়া কৌশল ॥ সুষ্ঠু নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ!
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » ভোলায় সাংবাদিক নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নয়া কৌশল ॥ সুষ্ঠু নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ!
১৪৯ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ৪ জানুয়ারী ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ভোলায় সাংবাদিক নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নয়া কৌশল ॥ সুষ্ঠু নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ!

ভোলাবাণী ডেক্স রির্পোটঃ


পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের একাধিক সহিংস ঘটনায় ইতোমধ্যেই ভোলা দেশব্যাপী আলোচনার জন্ম দিয়েছে। বাড়ী ঘর ভাংচুর, বোমা হামলা, নারীদের সভ্রমহানী, দলীয় কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ, মারধর ও মিথ্যা মামলায় হয়রানী গ্রেফতারের ঘটনায় প্রমান করেছে যে বর্তমান প্রশাসন সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ ভোট অনুষ্ঠানে আন্তরিক নয়।

---প্রতিনিয়ত আহত হয়ে বিভিন্ন ইউনিয়নের কর্মী সমর্থকরা হাসপাতালে আসছে অথচ সব ক’টি ঘটনায় মামলা হচ্ছে না। মামলা হলেও গ্রেফতার হচ্ছে না। আবার গ্রেফতার হলেও পুলিশ অনেককে ছেড়ে দিচ্ছে। এমনকি কোন কোন প্রার্থীর কর্মীদের গ্রেফতারী পরোয়ানা ছাড়া গ্রেফতার করছে পুলিশ। এ অবস্থায় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীরা নিজেরাই ভোট সুষ্ঠু হবে কি না সে ব্যাপারে সংশয়ে রয়েছেন। শিবপুরের চেয়ারম্যান প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছেন। আগামীকাল ৫ জানুয়ারী ভোট কেন্দ্রে কি ঘটবে ভোটাররা তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে নির্বাচিত করতে পারবে কিনা, কোন কোন প্রার্থী জোরপূর্বক তাদের সামনেই ভোটারদেরকে প্রকাশ্যে ভোট দিতে বাধ্য করেন কিনা? যেহেতু প্রশাসনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে সেখানে আবার গতকাল (সোমবার) রাতে হঠাৎ করে সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষণ কার্ড বাতিল করে ইউএনও বরাবরে নতুন করে আবেদনের জন্য বলা হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। এ সিদ্ধান্তে প্রমান করে প্রকৃত সংবাদ যেনো মিডিয়ায় না আসে। হঠাৎ করে এ ধরণের সিদ্ধান্ত নেয়ায় ভোলায় গণমাধ্যম কর্মীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। সাংবাদিকরা বিভিন্ন ধরণের বক্তব্য প্রদান করছেন।

ভোলায় সাংবাদিক নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নয়া কৌশল ॥ সুষ্ঠু নির্বাচনএ ব্যাপারে ভোলার সিনিয়র সাংবাদিক ইন্ডিপেনডেন্ট টিভির ভোলা প্রতিনিধি এডভোকেট নজরুল হক অনু বলেন, নির্বাচন কমিশনের নিয়মের বাইরে অন্য কোন ব্যক্তি বা সংস্থার কার্ড দেয়ার অথরিটি কিংবা সুপারিশের সুযোগ নেই। এউএনও বরাবরে আবেদন এর নির্দেশ দেয়া সম্পূর্ণ বেআইনী। নির্বাচন কমিশনের কার্ড, নিয়মানুযায়ী নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তাই দেবেন। ইউএনও বা পুলিশ সুপার কিংবা জেলা প্রশাসক বা অন্য কারো দেয়ার বিধান নেই। এই সিদ্ধান্ত যদি পরিবর্তন করা না হয় তাহলে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে।

ভোলা জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক সমকন্ঠ পত্রিকার সম্পাদক আল আমিন শাহরিয়ার বলেন, একজন নির্বাচন কর্মকর্তার কোনমতেই এ ধরনের বিজ্ঞপ্তি জারি করার এখতিয়ার নেই। তিনি একটি রাজনৈতিক দলের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের ভোট কেন্দ্র দখল ও কারচুপির সুযোগ করে দিতে গণমাধ্যম কর্মীদের বিরুদ্ধে এ ধরণের অন্যায় বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন বলেও তিনি মনে করেন। তিনি আরও বলেন, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা একটি রাজনৈতিক দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে এ ধরণের ঘৃণ্য কর্মকান্ড শুরু করেছেন।

বাংলাদেশ অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন (বিওজেএ) ভোলা জেলা শাখার সভাপতি ও ভোলাবাণী সম্পাদক খলিল উদ্দিন ফরিদ বলেন ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচনের একদিন আগে এরকম সিদ্ধান্ত নির্বচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য গণমাধ্যমের বিকল্প নেই।

এদিকে সিনিয়র সাংবাদিকগনসহ ভোলা জেলার বিভন্ন সংগঠনে র সাংবাদিকগন নির্বাচন কর্মকর্তার এ ধরনের সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
লালমোহনে পুকুরে ‘সাকার ফিশ’
বিজয়ের মাসেও অরক্ষিত বীর শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিফলক
তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
ভোলায় প্রথম চরফ্যাসন সেন্ট্রাল হাসপাতালে কিডনি ডায়ালাইসিস মেশিন স্থাপন
দেশজুড়ে রের্ড এলার্ট।।পুলিশের সর্বোচ্চ সতর্কতা
ক্যান্সার আক্রান্ত শিশু রাজ্জাকের পাশে দাড়ালেন ভোলা জেলা প্রবাসী কল‍্যান সংগঠন।।
তজুমদ্দিনে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ, আর্থিক জরিমানা ॥
বঙ্গবন্ধুর স্নেহের তোফায়েল আহমেদের জন্মদিন আজ
নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা ।।মনপুরায় রাতের আধারে হোম ডেলিভারী সার্ভিসে বিক্রি হচ্ছে মা ইলিশ
ভোলা জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে আ্যওয়ার্ড পেয়েছেন আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া