শিরোনাম:
ভোলা, বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

Bholabani
রবিবার ● ১৩ জুন ২০২১
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » ভিক্ষা নয়, কাজ করে খেতে চায় রোকসানা ॥ বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » ভিক্ষা নয়, কাজ করে খেতে চায় রোকসানা ॥ বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা
৪৩৫ বার পঠিত
রবিবার ● ১৩ জুন ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ভিক্ষা নয়, কাজ করে খেতে চায় রোকসানা ॥ বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা

 সালাম সেন্টু।।ভোলাবাণী।। লালমোহন প্রতিনিধি॥ রোকসানা বেগম, দুই সন্তানের জননী। বয়স আনুমানিক ২০/২২ হতে পারে। তবে অর্ধাহারে অনাহারে কঙ্কালসার রোকসানাকে মনে হয় যেন, ষষ্টোর্ধ বৃদ্ধা। ৩মাসের শিশু সন্তান কোলে নিয়ে লালমোহন বাজারের বিভিন্ন দোকানে ভিক্ষা করতে দেখা যায় তাকে। এসময় রোকসানা জানায়, মানুষের দ্বারে দ্বারে ভিক্ষা করতে ভাল লাগেনা তার, কাজ করে খেতে চায় সে। সরকারি-বেসরকারি কোনও সাহায্য সহযোগিতা পেলে ভিক্ষা ছেড়ে দিবে সে। তার এ স্বপ্ন পূরণে সমাজের সহযোগিতা কামনা করেছেন রোকসানা।

ভিক্ষা নয়, কাজ করে খেতে চায় রোকসানা ॥

রোকসানা বোরহানউদ্দিনের হাসাননগর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড মির্জাকালু এলাকার ডাক্তার বাড়ির মৃত নাছির মেস্তরির মেয়ে। প্রায় ৭/৮ বছর আগে একই উপজেলার দালাল বাজার এলাকার মৃত আতরজমার ছেলে সিরাজের সাথে বিয়ে হয় তার। সিরাজের পিতার মৃত্যুর পর তাকে যিনি দত্তক নিয়েছিলেন, বিয়ের পর সেই বাড়িতেই থাকতেন রোকসানা। তাদের ঘরে হাবিবা (৪) ও তাসপিয়া (৩ মাস) নামের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। তাসপিায়ার জন্মের আগেই রোকসানা কে ফেলে রেখে নিরুদ্দেশ হয়ে যায় স্বামী সিরাজ। পরে শশুর বাড়িতে ও ঠাঁই হয়নি তার। তাই জীবিকার তাগিদে ভিক্ষার পথ বেছে নিয়েছে সে।রোকসানা জানায়, প্রায় তিন বছর আগে তার মায়ের মৃত্যু হয়, এর বছখানেক পর বাবা নাছির মেস্তরি ও চলে যান পরপারে। দুই ভাই, দুই বোনের মধ্যে সে ছোট। ৭/৮ বছর আগে সিরাজের সাথে বিয়ে হয়েছিল তার। দিনমজুর সিরাজের রোজগারের চলতো তাদের সংসার। প্রায় ৫/৬ মাস আগে হঠাৎই নিরুদ্দেশ হয়ে যায় তার স্বামী। পরে স্বামীর বাড়ি থেকেও তাকে তাড়িয়ে দেয়া হয়। তাই দুই সন্তান ও নিজের জীবন বাঁচানোর তাগিদে ভিক্ষে করছেন তিনি। ভিক্ষের টাকায় ৫শ টাকা ঘর ভাড়া দেন তিনি। করোনার মধ্যেও পাননি সরকারি বেসরকারি কোনও সাহায্য সহযোগিতা। স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারের কাছে সরকারি একটি ঘরের জন্য বারবার গিয়েও কোনও ঘর পাননি ।

হাসাননগর ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ সাফায়েত ভূইয়া বলেন, আমার কাছে এ নামের কেউ আসেনি, তবে আসলে যতটুকু সম্ভব সাহায্য সহযোগিতার ব্যবস্থা করবো। হাসাননগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মানিক হাওলাদার বলেন, রোকসানা নামের কেউ আমার কাছে আসেনি। তবে আমার এলাকার কেউ ভিক্ষাবৃত্তি করুক, এটা আমিও চাইনা। সে যদি আমার কাছে আসে, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে ও আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে।

ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে রোকসানাকে কর্মে ফেরার স্বপ্নপুরণে কেউ সহযোগিতা করতে চাইলে এ ০১৭১২-৩৮৭৩২৯ নাম্বারে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানিয়েছে সে। নাম্বারটি বিকাশও করা আছে। সমাজের বিত্তবানসহ সকলের সহযোগিতার মাধ্যমে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ ও মাথা গোজার ঠাঁই হবে রোকসানার, এমনটাই প্রত্যাশা তার।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ভোলায় হারিয়ে যাওয়া ১০টি ফোন উদ্ধার করলো সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন
চরফ্যাশনে দেশী হাঁসের কালো ডিম নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যে
যে কোন সংকটে মানবসেবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন শাহপরান জয়
যৌনতায় সুখ পেলই বিয়ে হয় যেখানে
তজুমদ্দিনে টেকশই বেড়িবাঁধ নির্মাণ,অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি।
ঘাটে ভিড়ছে না লঞ্চ, ভোগান্তিতে তজুমদ্দিনের ব্যবসায়ী ও লক্ষাধিক মানুষ।
ভোলায় শ্বশুর বাড়িতে স্বামীর উপর স্ত্রী পক্ষের হামলায় আহত-৩
ঈদের রেসিপি: মচমচে ভুঁড়ি ভুনা
গরুর মাংস ফ্রিজ ছাড়া যেভাবে সংরক্ষণ করবেন
বিশ্ববাজারে কমেছে স্বর্ণের দাম