শিরোনাম:
ভোলা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯

Bholabani
শুক্রবার ● ১৫ জুলাই ২০২২
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » দক্ষিণাঞ্চলের ১০ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » দক্ষিণাঞ্চলের ১০ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।
৭৬ বার পঠিত
শুক্রবার ● ১৫ জুলাই ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

দক্ষিণাঞ্চলের ১০ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।

ভোলাবাণী ডেক্স ঃ বরিশাল নগরী ঘেঁষা কীর্তনখোলা নদীসহ দক্ষিণাঞ্চলের ১০ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় জানায়, সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী কীর্তনখোলা নদীর পানি বিপৎসীমার ২ দশমিক ৫৫ সেন্টিমিটার হলেও বর্তমানে প্রবাহিত হচ্ছে ২ দশমিক ৭২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে।

দক্ষিণাঞ্চলের ১০ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।

এ ছাড়াও, ভোলার খেয়াঘাট সংলগ্ন তেতুলিয়া নদীর পানি বিপৎসীমার ২ দশমিক ৯০ হলেও বর্তমানে ৩ দশমিক ১০ সেন্টিমিটার, ভোলার দৌলতখান সংলগ্ন মেঘনা নদীর পানি বিপদসীমার ৩ দশমিক ৪১ হলেও বর্তমানে প্রবাহিত হচ্ছে ৪ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে। তজুমদ্দিন এলাকার মেঘনা নদীর পানি বিপদসীমার ২ দশমিক ৮৩ সেন্টিমিটার, বর্তমানে প্রবাহিত হচ্ছে ৩ দশমিক ৮০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে। ঝালকাঠী বিষখালী নদীর পানি বিপদসীমার ২ দশমিক ৮ সেন্টিমিটার হলেও বর্তমানে ২ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।পটুয়াখালী মির্জাগঞ্জের পায়রা ও বুড়িশ্বর নদীর পানি বিপৎসীমার ২ দশমিক ৮১ বর্তমানে ৩ দশমিক ৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বরগুনার বিষখালী নদীর পানি বিপদসীমার ২ দশমিক ৮৫ বর্তমানে ৩ দশমিক ২৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পাথরঘাটা বিষখালী নদীর পানি বিপৎসীমার ২ দশমিক ৮৫ বর্তমানে ৩ দশমিক ৫৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পিরোজপুরের বলেশ্বর নদীর পানি বিপদসীমার ২ দশমিক ৬৮ বর্তমানে ২ দশমিক ৭৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উমেদপুর কচা নদীর পানি বিপদসীমার ২ দশমিক ৬৫ বর্তমানে ২ দশমিক ৮৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মাসুম বলেন, বর্ষা মৌসুমে বিভাগের মোট ২৩টি নদীর পানি প্রবাহ পর্যবেক্ষণ করা হয়। তবে বর্তমানে গুরুত্বপূর্ণ ১০টি নদীর পানি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ নদীর পানিই বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে, দক্ষিণাঞ্চলের সব নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার ফলে নদীর তীরের জনপদ, চরাঞ্চল দুই থেকে তিন ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এতে করে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় অধিকাংশ স্থানের গ্রামবাসী পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। হাজার হাজার একর ফসলী জমিও পানির নিচে রয়েছে। এ ছাড়াও, খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জোয়ারের পানির স্রোতে পটুয়াখালীর কলাপাড়া সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে লালুয়া, চম্পাপুর ও মহিপুর ইউনিয়নের ২০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
চরফ্যাশনে দেশী হাঁসের কালো ডিম নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যে
যে কোন সংকটে মানবসেবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন শাহপরান জয়
যৌনতায় সুখ পেলই বিয়ে হয় যেখানে
তজুমদ্দিনে টেকশই বেড়িবাঁধ নির্মাণ,অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি।
ঘাটে ভিড়ছে না লঞ্চ, ভোগান্তিতে তজুমদ্দিনের ব্যবসায়ী ও লক্ষাধিক মানুষ।
ভোলায় শ্বশুর বাড়িতে স্বামীর উপর স্ত্রী পক্ষের হামলায় আহত-৩
ঈদের রেসিপি: মচমচে ভুঁড়ি ভুনা
গরুর মাংস ফ্রিজ ছাড়া যেভাবে সংরক্ষণ করবেন
বিশ্ববাজারে কমেছে স্বর্ণের দাম
আবার এসেছে আষাঢ়