শিরোনাম:
ভোলা, বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮

Bholabani
শনিবার ● ৩ এপ্রিল ২০২১
প্রথম পাতা » দুলার হাট » মুজিবনগরে ভূমিদস্যু খোকনের তান্ডবে বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা কৃষক পরিবার
প্রথম পাতা » দুলার হাট » মুজিবনগরে ভূমিদস্যু খোকনের তান্ডবে বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা কৃষক পরিবার
২৮ বার পঠিত
শনিবার ● ৩ এপ্রিল ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

মুজিবনগরে ভূমিদস্যু খোকনের তান্ডবে বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা কৃষক পরিবার

দুলারহাট প্রতিনিধি।।ভোলাবাণী।।

মুজিবনগরে ভূমিদস্যু খোকনের তান্ডবে বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা কৃষক পরিবার

চরফ্যাসনের দুলারহাট থানার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ মুজিবনগরে জমি জাল দলিল সৃজন করে কৃষকের বসতবাড়ির ও আবাধি জমিসহ ৭ একর ৫০ শতাংশ জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ভূমিদস্যু খোকন হাওলাদারের বিরুদ্ধে। ভূমিদস্যু খোকন হাওলাদারের তান্ডবে বসতভিটে বাড়ি হারিয়ে দিশেহারা কৃষক পরিবার। দুলারহাট থানায় জমি জবর দখলের দায়ের করায় আসামীদের অব্যাহত হুমকি দামকিতে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে তার পরিবার। এঘটনায় আদালতে জাল-জালিয়াতির মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে কৃষক মো. মফিজল ইসলাম জানিয়েছেন।কৃষক মো. মফিজল ইসলাম অভিযোগ করেন, মুজিবনগর ইউনিয়নের চর মনোহর মৌজায় এসএ ৩৯৬,৪২০,৩২ ও ৫৬ নং খতিয়ানের মো. হোসেন ১ একর ৫০ শতাংশ ও সুলতান আহমেদের কাছ থেকে ১ একর ৫০ শতাংশ, মনতাজ মিয়া থেকে ৩ একর , আবু জাফর মো, ইউনুছ থেকে ১ একর ৫০ শতাংশ জমি খরিদ করে প্রায় ৫০ বছর ভোগদখলে বিদ্যমান আছেন।

১৯৮২সনে ভূমিদস্যু খোকন হাওলাদার ৩৭৪ ও ৩৭৩ নম্বর ভূয়া খতিয়ান ব্যবহার করে আবদুর রব মোল্লা ও গোপাল চরন দেবনাথ নামের দুই ব্যক্তিকে দলিল দাতা সাজিয়ে ৭৩০৮ ও ৭৩০৭ নং দলিল নম্বর উল্লেখ করে জাল দলিল সৃজন করে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে তার ভোগদখলীয় বসতবাড়ির ভিটে আবাদি জমি জবর দখল করেন। পরবর্তীতে ভূমিদস্যু খোকন হাওলাদার ভূয়া দাগ খতিয়ান ব্যবহারিত সৃজন করা ওই দলিল ভোলা সাব রেজিস্ট্রি অফিসে পর্যালচনা করলে তার কোন অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

তবে দলিল পর্যালচনা করে পাওয়া যায়, খোকন হাওলাদারের জাল দলিলে দাতার সৃজন করা ভুয়া জাল দলিলের মালিক আবদুর রব মোল্লা ও গোপল চরণ দেবনাথ নামে কোন দলিল নাই। তার সৃজন করা জাল দলিলের খতিয়ান ও দাগে জমির প্রকৃত মালিক ওই মৌজার রুহুল আমিন ও দিল মোহাম্মদ। খোকন হাওলাদারের জাল দলিল সৃজনের সাথে মফিজুল ইসলামের জমির কোন সংশ্লিষ্টাতা নাই।

তার জমি জবর দখল করতে ভুয়া দাতা সাজিয়ে জমির প্রকৃত মালিককে আড়াল করে ভুয়া জাল দলিল সৃজন করে তার খরিদা দখলীয় ৭ একর ৫০ শতাংশ জমি হাতিয়ে নিয়েছেন। ভূমিদস্যু খোকনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে মামলা হামলার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে তার পরিবার।

ভূমিদস্যু খোকন হাওলাদারের তান্ডবে শিকার স্থানীয় ভুক্তভোগী একাধিক কৃষক পরিবার অভিযোগ করেন, খোকন হাওলাদারের ভূমিসদস্যুতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে ধর্ষণ মামলাসহ বিভিন্ন মামলা দিয়ে হয়রানির হুমকি ধামকি দেন। তার মামলার ফাঁসানো হুমকিতে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস পায় না বিচ্ছিন্ন চরের সাধারণ ভূমিহীন কৃষকরা।

অভিযুক্ত খোকন হাওলাদার সাংবাদিকদের জানান, অন্যের জমি জাল দলিলের বিষয়টি সঠিক নয়। আবদুর রব মোল্লা ও গোপল চরন দেবনাথের কাছ থেকে জমি খরিদ করেছি।

দুলারহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোরাদ হোসেন বরিশালটাইমসকে জানান, ইতিপূর্বে মফিজল ইসলাম বাদী হয়ে খোকনের বিরুদ্ধে একটি জবর দখলের মামলা দায়ের করেছেন। এখন আর নতুন কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
একজন আলোকিত মানুষ মুহাম্মদ শওকাত হোসেন
২ মাস নিষেধাজ্ঞা, জাল বুনে ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলেরা
আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় তরমুজের বাম্পার ফলন
মনপুরা দখিনা হাওয়া সি-বিচ পর্যটনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন
কামরুল আহসান চৌধুরী’র চেয়ারম্যান হওয়ার গল্প
শশীভূষনে একটি ব্রীজের অভাবে চরম দুর্ভোগে হাজারো মানুষ।।ঝূকিপূর্ন সাঁকো পারাপাড়
আগামীকাল শুরু হতে যাচ্ছে একুশে বইমেলা-২০২১
মনপুরায় নারী দিবসে লাল সবুজ সোসাইটির ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন
তৃতীয়বারের মতো ভোলা পৌরসভার মেয়র হলেন নৌকা প্রতীকের মনিরুজ্জামান
সংসদ সদস্য পদ হারালেন কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল